পঞ্চগড়ে শ্রমিকদের নির্বাচনের দাবিতে সড়ক অবরোধ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি।।

১১১

পঞ্চগড় জেলা মটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন রেজিঃ নং রাজঃ ২৬৪-এর ত্রি- বার্ষিক নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় নির্বাচনের দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে ২৬৪ সংগঠনের শ্রমিকরা। এতে করে সড়কে চলাচলে বিপাকে পড়েছে জেলার সাধারণ মানুষ। গত শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত থেকে তারা এই অবরোধ কর্মসূচী পালন করে আসছে।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, অবরোধে সব থেকে বেশী বিপাকে পড়েছে দূরপাল্লার যাত্রীরা। তবে ভাড়ি যানবাহন বাস মিনিবাস, ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকলেও ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক ও ভ্যানগাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এদিকে সমস্যা সমাধানে তোড়ঝোড় শুরু করেছে সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

অবরোধ কারী শ্রমিক নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ভোট স্থগিতের কারণে তারা সড়কে নেমেছে। যতদিন ধরে ভোট অনুষ্ঠিত হবে না, তারা ততদিন সড়ক অবরোধ করে রাখবে।

পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিস্থিতি খুবই স্বাভাবিক রয়েছে। পঞ্চগড় জেলা প্রশাসকসহ আমরা সকাল থেকে রাস্তায় রয়েছি। আমাদের ফোর্স অফিসার পর্যাপ্ত এ ঘটনায় দায়িত্ব পালন করছে। সাধারণ সব মুভমেন্ট স্বাভাবিক রয়েছে, কিছু গাড়ি আটকা রয়েছে। আমরা শ্রমিক নেতাদের সাথে কথা বলেছে, সাথে কথা বলা অব্যাহত রয়েছে। আশাকরি দ্রুত সমাধান হয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং রাজঃ ২৬৪ ও ২০০০ এর মাঝে ীর্ঘদিনের একটি মামলা চলমান ছিলো। এর মাঝে ঢাকা হাইকোর্ট গত ১৭ ফেব্রুয়ারি সেই মামলার রায় প্রান করেন বিচারক মনোয়ার রহমান ও বিচারপতি খন্দকার দিলিরুজ্জামান এর সমন্নয়ে হাইকোর্ট বেঞ্চ। আর এই রায়ের পর শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজি নং রাজঃ ২৬৪) সংবিধান পরিবর্তনের নির্দেশ দেয়া হয়। তবে সংবিধান পরিবর্তন না করেই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করে শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) নির্বাচনের দিন ঠিক করে ২৬৪। এদিকে সংবিধান পরিবর্তন না করায় ট্রাক ট্যাংকলরী, কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজিঃ নং রাজঃ ২০০০) সভাপতি মো. সাবিরুল ইসলাম হাইকোর্টে আপত্তি জানিয়ে আপিল করলে আদালত নির্বাচন স্থগিত রেখে ১৫ দিনের মধ্যে সংবিধান সংশোধণের নির্দেশ দেয়। এর পর শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টায় নির্বাচন স্থগিতের একটি নোটিশ পাওয়ার পর শুক্রবার রাত থেকে অবরোধ শুরু করে তারা। এখন পর্যন্ত অবরোধ চলছেই।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!