পাবনায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

পাবনা প্রতিনিধি।।

১৬২

পাবনায় ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কে কেন্দ্র করে নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় সুজানগর উপজেলার মানিক হাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্বাস আলী মল্লিক সংবাদ সম্মেলন করেছে। আজ সোমবার বিকেলে ইউনিয়নের বনকোলা বাজারে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন,

আমি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনী মাঠে নামার পর থেকেই আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিউল ইসলাম ও তার সমর্থক কর্মীরা আমাকে তথা আমার কর্মী সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করছেন।

সেই সঙ্গে সে আমাকে নির্বাচন থেকে বিরত থাকতে নানা ভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছেন। পাশাপাশি আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিউল ইসলাম ভোট কেন্দ্র জবর দখল করে ভোট কেটে নিয়ে জয়যুক্ত হওয়ার কথাও লোকমুখে বলে বেড়াচ্ছে। সেই সঙ্গে সে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে প্রতিনিয়ত সশস্ত্র মহড়া দিচ্ছেন।

গত রোববার দিনগত রাত আনুমানিক ৭ :৩০ মিনিটের দিকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা কামরুজ্জামান উজ্জ্বলের নেতৃত্বে উক্ত শফিউল ইসলামের ছোট ভাই মুরাদ, উজ্জ্বল, ভাতিজা গাজী,রিকু ও আলী সহ শতাধিক সশস্ত্র ক্যাডার বাহিনী নিয়ে হোন্ডা ও মাইক্রোবাস নিয়ে আমার বনকোলা বাজারস্থ আনারসের নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর এবং আমার সমর্থকদের ওপর গুলিবর্ষণ করে। গুলিতে আমার সমর্থক বনকোলা গ্রামের মোতালেব হোসেন, ফজলুল হক ফজলু, সাগর হোসেন, বিপুল ও সাগর হোসেন আহত হয়।

তিনি আরও বলেন, আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। সুষ্ঠ ভোট হলে ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ আমাকে ভোট দিবে। কিন্তু বর্তমান সৃষ্ট পরিস্থিতিতে আমার ধারণা হচ্ছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শফিউল ইসলাম তার পরাজয় নিশ্চিত ভেবে ভোট ডাকাতি করে নির্বাচনে জয়লাভ করার পাঁয়তারা করছেন। অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ভোট অনুষ্ঠানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট সকল পর্যায়ের প্রশাসনের প্রতি সবিনয় অনুরোধ জানাচ্ছি।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!