বুড়িচং উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণী কার্যক্রম পরিদর্শনে ইউএনও সাবিনা ইয়াছমিন

বুড়িচং, কুমিল্লা প্রতিনিধি।।

১১৪

মহামারি করোনা প্রতিরোধে সারা দেশের ন্যায় স্বাস্থ্যবিধি তথা সরকারি নির্দেশনা মেনে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর বুড়িচং উপজেলার প্রাথমিক স্কুল , মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসা সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রথম দিনের শ্রেণী কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুড়িচং আনন্দ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বুড়িচং কালী নারায়ণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ভরাসার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়, বাড়াইর হাজী চেরাগ আলী উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত শ্রেণী কার্যক্রমের বিভিন্ন দিক পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাম্মৎ সাবিনা ইয়াছমিন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল মান্নান।

মহামারি করোনা প্রতিরোধে সারা দেশের ন্যায় স্বাস্থ্যবিধি তথা সরকারি নির্দেশনা মেনে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর বুড়িচং উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ বুড়িচং কালী নারায়ণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং আনন্দ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে সরকার কর্তৃক ঘোষিত কঠোর নিয়ম নীতির অনুসরণ করে প্রথম দিনের শ্রেণী কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। শ্রেণী কার্যক্রমের বিভিন্ন দিক পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাম্মৎ সাবিনা ইয়াছমিন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল মান্নান। এসময় আনন্দ পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম আমিনুল ইসলাম, সহকারি শিক্ষক মো. জাকির হোসেন, মো. নাসির উদ্দীন, আবদুল কাদের, মো. ইসমাইল হোসেন, আলীম উল্লাহ, মো. মোখলেছুর রহমান, কালি নারায়ণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি বিষ্ণু কুমার ভট্টাচার্য্য, অভিভাবক সদস্য আ: কুদ্দুছ, প্রধান শিক্ষক অমল কৃষ্ণ পাল, সহকারি শিক্ষক মো. জসিম উদ্দীন , গোবিন্দ চন্দ্র সূত্রধর, কবির খান বিপ্লব, কুহিনুর আক্তার, কানিজ রাবেয়াসহ সহ অন্যান্য শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন।

 উল্লেখ্য, প্রায় দেড় বছর পর গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর রোববার হতে সরকারি নির্দেশনা মেনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত ১৯ দফা কর্মসুচী বাস্তবায়ন সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ক্লাশ চালুকরণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ফলে গত প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান ও অন্যান্য শিক্ষকদের নির্দেশনায় ধুয়ে মুছে স্বাস্থ্য সম্মত পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাপমাত্রা, স্যানিটেশন ও আইসোলেশন কক্ষ প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা রয়েছে। দেশে বর্তমানে করোনা সংক্রমন ৮ শতাংশ থাকায় সরকারের তরফ থেকে গতকাল থেকে স্কুল, কলেজ মাদ্রাসা সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন করোনা বিদায় নিয়ে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে আবার তাদের কাঙ্খিত বিদ্যালয় চত্বরে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে আসবে।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!