ভক্তদের মাতাতে আজ ঢাকায় আসছেন নোরা ফাতেহি

অনলাইন ডেস্ক।

৭৬

নোরা অর্থ আলো। তবে সেই আলো ফুটল গভীর রাতে। ঢাকায় নোরা ফাতেহির অনুষ্ঠান ঘিরে দিনভর চলল বাতিল ও অনুমতির ‘খেলা’। সন্ধ্যায় ইস্যু করা হলো নতুন চিঠি—অনুষ্ঠান বাতিল, যা করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে গভীর রাতে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের হস্তক্ষেপে মিলল এ বলিউড তারকার বাংলাদেশে আসার চূড়ান্ত অনুমতি। ফলে আজ ঢাকায় নামতে আর কোনো বাধা থাকল না ইন্দো-কানাডিয়ান নোরার।

স্বল্প সময়ের ব্যবধানে তথ্য মন্ত্রণালয়, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সব টেবিল ঘুরে রাত ১০টায় চূড়ান্তভাবে অনুমোদন দেওয়া হয় নোরা ফাতেহির এই আয়োজনকে। একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এর আগে ভিসা জটিলতার পর মঙ্গলবার নতুন ইস্যু সামনে আসে। এনবিআর এক প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করে, বিদেশি শিল্পী নোরা ফাতেহিকে নিয়ে অনুষ্ঠানের জন্য আয়োজক প্রতিষ্ঠান ওমেন্স লিডারশিপ করপোরেশন সংশ্লিষ্ট ভ্যাট দপ্তর ও বিভাগীয় দপ্তরে এ সংক্রান্ত কোনো ঘোষণা ও ব্যাংক গ্যারান্টি দাখিলসহ অনুমতি গ্রহণ করেনি। এ কারণে আয়োজন বন্ধ করে এনবিআর। অন্যদিকে, অনুষ্ঠান বন্ধের এখতিয়ার এনবিআরের নেই বলে জানান তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সচিবালয়ে বুধবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নোরা ফাতেহিকে নিয়ে বাংলাদেশে অনুষ্ঠান করার জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ট্যাক্স বা ভ্যাট আদায়ের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে পারলেও অনুষ্ঠান বন্ধ করার কোনো এখতিয়ার রাখে না।’

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শিল্পা শেঠি, সোহেল খান, সঞ্জয় দত্তসহ অনেক বিদেশি তারকা বাংলাদেশ ঘুরে গেলেও এমন বাধা দেয়নি এনবিআর। শর্তের বেড়াজালে আটকানোর চেষ্টাও করা হয়নি। তাই নোরার ক্ষেত্রে এমন দ্বিমুখী আচরণে অনেকেই এনবিআরকে কাঠগড়ায় তুলেছে।

অন্যদিকে, নোরার কয়েকবার ঢাকায় আসার গুঞ্জন উঠলেও তা আলোর মুখ দেখেনি। একটি স্টেজ শোর আয়োজনে নোরা ফাতেহিকে ঢাকায় আনতে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে প্রথমবার আবেদন করেছিল উইমেন লিডারশিপ করপোরেশন; তবে ডলার সংকটের কারণ দেখিয়ে নোরাকে ঢাকায় আনার অনুমতি দেওয়া হয়নি। পরে তথ্যচিত্রের কথা বলে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পান আয়োজকরা। এর মধ্যে বেঁকে বসে এনবিআর।

এই নাটকীয়তা নতুন মোড় নেয় যখন মিরর গ্রুপ নামে একটি প্রতিষ্ঠান দাবি করে তারাও নোরাকে আনতে চেয়েছিল। দেওয়া হয়েছে অগ্রিম টাকাও, যা ফেরত চাওয়া হয় আয়োজক উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের কাছে। পরে মিরর গ্রুপের কর্ণধার শাহ জাহান ভূঁইয়া রাজু উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা এবং ১০ লাখ টাকার একটি চেক হাতিয়ে নেন বলে প্রতারণার মামলা করে উইমেন লিডারশিপ করপোরেশন। সে মামলায় ডিএমপির গোয়েন্দাপ্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ জানান, মিরর গ্রুপের কর্ণধার শাহ জাহান ভূঁইয়া রাজুকে গ্রেপ্তার করেছেন তারা।

পাশাপাশি এনবিআরের ওই বিরূপ আচরণে রাজুর প্রভাব আছে বলে জানা গেছে। অনুষ্ঠান বাতিল করতে নানা ধরনের বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর অভিযোগও আছে এ গ্রুপটির বিরুদ্ধে। তবে নোরার এই সফর নিয়ে অনেক আগে থেকেই জল ঘোলা শুরু হয়। প্রথম ভুলটা করেন নোরা নিজেই।

ভিসার জন্য মুম্বাইয়ের বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনে পাতা শেষ হওয়া পাসপোর্ট জমা দেন তিনি। আর এ কারণে বিনা ভিসাতেই ফেরত দেওয়া হয়েছিল পাসপোর্ট। তখনই প্রথম ধাক্কা খান আয়োজকরা। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হওয়ায় বেশ দ্রুত এই তারকার ভিসার ব্যবস্থা করে বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন। ভিসা মেলার পরও একের পর এক আসতে থাকে বাধা।

মরক্কীয় বংশোদ্ভূত নোরার জন্ম ও বেড়ে ওঠা কানাডায়। ছোটবেলায় তিনি শাহরুখ খান ও হৃত্বিক রোশনের ভক্ত ছিলেন। ‘সাকি সাকি’, ‘দিলবার’ গানে নাচ পরিবেশন করে ঝড় তোলা নোরা এ মুহূর্তে বলিউডের সেরা আইটেম গার্ল। ‘কিক টু’, ‘শের’, ‘লোফার’, ‘সত্যমেব জয়তে’, ‘স্ত্রী’, ‘ভারত’, ‘বাটলা হাউস’ ছবিতে আইটেম গানে হাজির হয়েছেন তিনি। তার নজরকাড়া নাচে মুগ্ধ বাংলাদেশের দর্শকও। এ কারণে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার, বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) নোরার এ আয়োজন ঘিরে তৈরি হয়েছে বাড়তি উন্মাদনা।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!