মুরাদনগরে নারী মানবাধিকার কর্মীকে মারধর : দেলোয়ার মেম্বার কারাগারে

সাজ্জাদ হোসেন, মুরাদনগর প্রতিনিধি ।।

৪২

:
কুমিল্লার মুরাদনগরে গ্রাম্য শালিসে প্রকাশ্য দিবালোকে মরিয়ম বেগম নামে এক নারী মানবাধিকার কর্মীকে মারধরের আলোচিত ঘটনায় ইউপি সদস্য
দেলোয়ার হোসেনকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। বুধবার দুপুরে কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতের বিচারক মো: ওমর ফারুক জামিন আবেদন না
মঞ্জুর করে ইউপি সদস্য দেলোয়ার হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কারাগারে আটক দেলোয়ার হোসেন উপজেলার ১৫নং নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য ও ত্রিশ গ্রামের মৃত শাহ আলম মেম্বারের ছেলে।
বাদী পক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট এ.এইচ.এম আবাদ বলেন, গ্রাম্য সালিশে প্রকাশ্য দিবালোকে এক ভুক্তভোগী নারীকে মারধর করে ভিডিও চিত্র
ফেসবুকে ছাড়ার ঘটনায় একটি মামলা হয়। ওই মামলায় পুলিশ রির্পোট আসা পর্যন্ত মেম্বার দেলোয়ার হোসেন জামিনে ছিল। পুলিশ রির্পোটে ঘটনার
সত্যতা পাওয়ায়, আদালত জামিন বাতিল করে তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন। উল্লেখ্য, পূর্ব বিরোধ এবং গত ইউপি নির্বাচনে ভোট না দেয়ার
অভিযোগ এনে গত ২৮ জুন রাতে মুরাদনগর উপজেলার ত্রিশ গ্রামের নারী মানবাধিকার কর্মী এবং ইন্টার ন্যাশনাল লিগ্যাল এইড ফাউন্ডেশনের কর্মী
মরিয়ম বেগমকে লোক মারফত কোম্পানীগঞ্জ বাজার সংলগ্ন উত্তর গ্রামে ডেকে আনা হয়। এ সময় এক ব্যবসায়ীর দোকানে শালিসে বসে ইউপি সদস্য দেলোয়ার
হোসেন তার দলবল ওই নারীকে প্রকাশ্য দিবারোকে মারধর করেন। এক পর্যায়ে ওই নারী আত্মরক্ষার্থে এদিক সেদিক ছোটাছুটি করলেও হামলাকারীদের হাত থেকে
রক্ষা পায়নি। মারধরের সময় ধারণকৃত সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশ তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!