সরকারি জায়গার পরিবর্তে ব্যক্তিগত জায়গা ব্যবহার করে পন্টুন স্থাপনের আপত্তি

রাসেল আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।

১৩৬

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কাউতলী নৌকার ঘাটের জন্য প্রায় পাঁচ মাস আগে একটি সরকারি পন্টুন আনা হলেও রাস্তা নিয়ে দেখা দেয় জটিলতা। ফলে এটি অব্যবহৃত অবস্থায়ই থেকে যায়। বুধবার দুপুরে ভৈরব বন্দরের সহকারি সম্বনয় কর্মকর্তা গাজী আব্দুল মোতালিব পন্টুন স্থাপনের জন্য কাউতলী নৌকা ঘাট এলাকায় আসেন। তবে সরকারি জায়গার অবৈধ স্থাপনা না সরিয়ে ব্যক্তিগত জায়গায় ব্যবহার করে পন্টুন স্থাপনের আপত্তি জানানো হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বাজার কমিটি ও জায়গার মালিকের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান।

জায়গার মালিক মাহমুদুল হক ভূইয়া জানান, তার আবেদনের পরিপেক্ষিতে মন্ত্রণালয় থেকে একটি চিঠি ইস্যু হয়। যাত্রী সাধারণের নিরাপদ ও নিবিগ্ন চলাচলের সুবিধার্থে সরকারি জায়গার অবৈধ স্থাপনা অপসারণের জন্য সওজ, সড়ক বিভাগ ব্রাহ্মণবাড়িয়া কর্তৃক উচ্ছেদের জন্য বিআইডবি¬উটিএ আশুগঞ্জ ভৈরব বাজার নদী বন্দরকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। এরপর স্বেচ্ছায় অর্ধেক মানুষ তাদের দোকানপাট সরিয়ে নিলেও কিছু লোক ভৈরব বন্দরের কর্মকর্তাদের যোগসাজসে মৌখিক আদেশটি স্থগিত করে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ না করে ব্যক্তিগত জায়গা দিয়ে তারা রাস্তা করতে চায়। এ ব্যাপারে ভৈরব বন্দরে সহকারী সম্বনয় কর্মকর্তা আব্দুল মোতালিব জানান, আমি এখানে নতুন এসেছি। বিষয়টি সম্পর্কে বেশী অবগত না। বাজার কমিটি এবং জায়গার মালিক সিদ্ধান্ত দিলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ২৪।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!