সাফ জয়ী ফুটবলার মারিয়া মান্দা ও শিউলি আজিমকে সম্মিলিত গারো ছাত্র সমাজের সংবর্ধনা

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

৭৮

ফুটবলে দক্ষিন এশিয়া জয়ের পর থেকে সারাদেশের মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের খেলোয়াড়রা। দেশে ফেরার পর থেকে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে অসংখ্য সংবর্ধনা পেয়েছে নারী ফুটবলাররা। এরই অংশ হিসেবে সাফ নারী চ্যাম্পিয়ন ফুটবল দলের খেলোয়ার গারো জাতির দুই কৃতি সন্তান মারিয়া মান্দা ও শিউলি আজিমকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে ।

রবিবার দুপুরের ময়মনসিংহ নগরীর ভাটিকাশর টি ডব্লিউ এ অডিটোরিয়ামে এই সংবর্ধনার আয়োজন করে সম্মিলিত গারো ছাত্র সমাজ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ধৌবাউড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডেভিড রানা চিসিম। ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আশিষ বনোয়ারীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কারিতাসের আঞ্চলিক পরিচালক অপূর্ব ম্রং,কবি মতেন্দ্র মানখিন,যোহন সাংমা, ফাঃ বিজন কুবি, অর্পন যেত্রা, সিঃ লিয়া দ্রং, প্যারিস চিসিম, সুর্বনা পলি দ্রং।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মারিয়া মান্দা বলেন, সাফ জয়ের পর মানুষের এতো ভালোবাসা পেয়েছি, যা ভাষায় প্রকাশ করার মত নয়। মানুষের এই ভালোবাসায় আমাদের সামনের পথ চলায় উৎসাহ জোগাবে।

শিউলি আজিম আবেগাপ্লুত কন্ঠে অনূভুতি ব্যক্ত করে বলেন, সাফ জয়ের পর অনেকে আমার নাম শুনে আমি কোন ধর্মের তা জানতে চেয়েছে, আমি অত্যন্ত গর্বের সাথে বলেছি আমি আদিবাসী গারো সম্প্রদায়ের মেয়ে।
আমি অত্যন্ত আনন্দিত গারো সম্প্রদায়ের মানুষের মুখ উজ্জ্বল করতে পেরেছি। আমি চাই গারো মেয়ে ও ছেলেরা ক্রীড়া ক্ষেত্রে আরো এগিয়ে আসুক।

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ বলেন, নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে আধিবাসীরাও আজ এগিয়ে যাচ্ছে, এর অনন্য উদাহারন মারিয়া মান্দা ও শিউলি আজিম। সাফ জয়ী এই দুই কৃতি খোলোয়ার গারো জাতীর রত্ন। এরা শুধু গারো সম্প্রদায়ের গর্ব নয়, এরা পুরো জাতির গর্ব।

মারিয়া ও শিউলির সাফল্য নারীদের ও গারো সন্তানদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে উৎসাহ যোগাবে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শুরুতে গারো সম্প্রদায়ের গান ও নৃত্যের পরিবেশনের মাধ্যমে এই দুই কৃতি খেলোয়াড়দের স্বাগত জানানো হয়। পরে মঞ্চে তাদের মুকুট, উত্তোরীয় পরিয়ে ও ফুলের মালা দিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!