সোনারগাঁয়ে কিশোরীকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদে দুই যুবককে গনধোলাই

সোনারগাঁ(নারায়ণগঞ্জ)।।

১০৬

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার নুনেরটেক গ্রামে এক কিশোরীকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদে গত শনিবার রাতে এলাকাবাসীরা দুই যুবককে গন ধোলাই দিয়ে তাদের পরিবারের সদস্যদের মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় থানায় দুপক্ষই পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সরেজমিন নুনেরটেক গ্রামে গিয়ে ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কিশোরিটিকে নুনেরটেক গ্রামের মহি উদ্দিনের ছেলে মো: শরীফ গত এক বছর ধরে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। প্রেমের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় কিশোটিকে মো: শরীফ বিভিন্ন সময় উত্যক্ত করতো। গত শনিবার রাতে শরীফ কিশোরীর বাড়িতে যাওয়ার পর কিশোরীর খালু তার ভাগ্নিকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় শরীফ ও তার বন্ধু কিশোরীর খালুর উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। পরে ঘটনাস্থলে এলাকাবাসীরা ছুটে এসে শরীফ ও শাকিল মিয়াকে গনধোলাই দেন। এ ঘটনার পর উত্যক্তকারী শরীফের বোন স্থানীয় একটি বেসরকারী পাঠশালার শিক্ষিকা মরিয়ম আক্তার ও তার আরেক ভাই রাশেদ ও তার মা নাছিমা বেগম ঘটনাস্থলে কিশোরীর বাড়িতে আসায় উত্তেজিত এলাকাবাসীরা তাদেরকেও মারধর করে। এ ঘটনার পর উত্যক্তকারী মো: শরীফ বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় নুনেরটেক গ্রামের ১৬ জনকে আসামি করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগপত্রে বাদি উল্লেখ করেন, আসামিরা পূর্ব শত্রæতার জের ধরে তাদের (বাদির) বাড়িঘর ভাংচুর করে নগদ টাকা সহ ঘরের মালামাল লুট করে নিয়ে যায় এবং তাদের পরিবারের পাঁচজনকে পিটিয়ে আহত করে।

এদিকে এ ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তৌহিদ এলাহী ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গোলাম মুস্তাফা মুন্না। গোলাম মুস্তাফা মুন্না জানান, এক কিশোরীকে ইভটিজিং করার সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ঘটনাটি ঘটেছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত বিষয়ে একটি পক্ষের মৌখিক অভিযোগের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় দুপক্ষের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!