সোনারগাঁয়ে জমি সংক্রান্ত বিরোধে বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট

নজরুল ইসলাম শুভ, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ):

৬০

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। গত শুক্রবার রাতে সোনারগাঁ পৌর এলাকার টিপুরদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাড়ির মালিক হাবিবুর রহমানকে পিটিয়ে জখম করে। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে আনোয়ার হোসেন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছে।

জানা যায়, উপজেলার টিপুরদী মৌজায় ৬ শতাংশ জমি ক্রয় করে হাবিবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছে। সম্প্রতি চৌদানা গ্রামের জাফর আলীর ছেলে আনোয়ার হোসেন, গোলজার হোসেনসহ ৭-৮ জনের একটি দল ওই জমি তাদের দাবি করে ভয়ভীতি দেখায়। গত শুক্রবার রাতে আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে গোলজারসহ অজ্ঞাতনামা আসামীরা হাবিবুর রহমানের বাড়িতে প্রবেশ করে তার ওপর হামলা করে। এসময় হামলাকারীরা বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এতে হাবিবুর রহমানের প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকার মালপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

এলাকাবাসী জানায়, আনোয়ার হোসেনে বাবা জাফর আলী ওই এলাকার সকল জমি বিক্রি করে দিয়ে নিঃস্ব হয়ে চৌদানা এলাকায় বসবাস শুরু করে। দীর্ঘদিন পর জাফর আলীর মৃত্যুর পর এ জমি তাদের দাবি করে। জাফর আলীর বিক্রিত সকল সম্পত্তিতে গরমিল করে বিক্রি করে। এতে করে সকল ক্রেতা সমস্যায় পড়েন। এছাড়াও তার চাচা ও মিছির আলীও একই সমস্যা সৃষ্টি করেন। ফলে মিছির আলীর ছেলেও বিভিন্ন কায়দায় মানুষের কাছে বিক্রি করা জমি দাবি করে সমস্যার সৃষ্টি করছেন। তাদের এ পরিবারের সদস্যদের বিচারের আওতায় আনার দাবি করেছেন।

ভূক্তভোগী হাবিবুর রহমান বলেন, আমি কাগজপত্র যাচাই করে ৬ শতাংশ জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছি। হঠ্যাৎ করে আনোয়ার হোসেন ও তার ভাই গোলাজার এ জমি তাদের দাবি করে বাড়িঘরে হামলা ও ভাংচুর লুটপাট করে।

অভিযুক্ত আনোয়ার হোসেন বলেন, আমার বাবা সম্পত্তি বিক্রির পরও আমাদের এ সম্পত্তি রয়েছে। আমার চাচাতো ভাইয়েরা জালিয়াতি করে এ সম্পত্তি বিক্রি করেছেন।

সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, হামলা বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় মামলা গ্রহন করা হয়েছে। অভিযুক্ত এক আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!