সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসায় ভাসছে এইউইও মনসুর আহমেদ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি।।

১৭৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মনসুর আহমেদ। তিনি একজন কর্মচঞ্চল, পরিশ্রমী, ন্যায়-নিষ্ঠাবান এবং চৌকস অফিসার। তিনি এ উপজেলায় যোগদানের পর থেকেই প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় এসেছে আমূল পরিবর্তন। তার সততা ও নিষ্ঠার দরুণ প্রাথমিক শিক্ষকদের মাঝে বেড়েছে কাজের স্পৃহা ও দায়িত্বশীলতা। তিনি অফিসে নিয়মিত উপস্থিতি ও উপজেলার বিভিন্ন দূর্গম এলাকার বিদ্যালয়গুলো পরিদর্শনসহ প্রাথমিক শিক্ষার সার্বিক ব্যবস্থাপনা উন্নতি করণের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন অবিরত।

সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. মনসুর আহমেদ তাঁর মেধা, মননশীলতা, কর্মদক্ষতা ও সততার গুণে অতি অল্প সময়েই প্রাথমিক শিক্ষায় অভূত সাড়া জাগিয়েছেন। ছাত্র, শিক্ষক, অভিভাবক তথা সর্বমহলে একজন সৎ ও পরিচ্ছন্ন অফিসার হিসেবে সকলের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে তাঁর প্রশংসায় বিভিন্ন মহলে ব্যাপকভাবে সাড়া পড়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে সহদেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ( ভারপ্রাপ্ত) আল মামুন রমজান তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে লিখেন মনসুর স্যার উনি সৎ, নীতিবান, কর্মঠ, শিক্ষা ও শিক্ষকবান্ধব একজন চৌকস অফিসার। সততা, নীতি ও আর্দশের ক্ষেত্রে উনি আপোষহীন। ব্যক্তিগতভাবে উনার সাথে আমার সম্পর্ক খুব একটা ভালো না হলেও উনার দায়িত্বশীলতার জন্য এবং শিক্ষা ও শিক্ষক বান্ধব আচরণের জন্য তার প্রতি শ্রদ্ধা, সম্মান ও ভালবাসা অফুরান।

হরষপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সজিব উল্লাহ খান ও সাতগাঁও মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল গাফ্ফার এবং মনিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মনিরুল ইসলাম সজিব, মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শিব্বির আহমেদ সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক।

সহকারি শিক্ষকগণ তাদের ব্যক্তিগত আইডিতে প্রশংসা করে লিখেন, জনাব মনসুর আহমেদ, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার। তিনি বিজয়নগর উপজেলায় যোগদানের পর থেকে প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। বিজয়নগরের প্রত্যেক শিক্ষক খুব ভালোভাবেই জানেন যে উনি একাধারে সৎ, নীতিবান, কর্মঠ, শিক্ষা ও শিক্ষকবান্ধব একজন চৌকস অফিসার। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে এমন মনসুর আহমেদদের খুবই প্রয়োজন এখন। উনারা হাতে আলোকবর্তিকা নিয়ে আসেন সমাজ, জাতি ও দেশের অগ্রগতির জন্য। আমরা এমন একজন সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার পেয়ে গর্বিত।

এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মনসুর আহমেদের কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রংশসা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অভিমত প্রকার করে তার সার্বিক মঙ্গল ও শুভ কামনা জানিয়েছেন বিভিন্ন মহলের লোকজন।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!