কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আ.লীগ নেতৃত্ব মুস্তফা কামাল ও মুজিবুল হকের হাতেই

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে পুরোনোরাই বহাল রয়েছেন। আবারও সভাপতি হয়েছেন কুমিল্লা-১০ (নাঙ্গলকোট, সদর দক্ষিণ ও লালমাই) আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আর সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছেন কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য সাবেক রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক।

বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লার লালমাই উপজেলার বাগমারা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম তাঁদের নাম ঘোষণা করেন। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয়। তখনো এই দুই নেতা শীর্ষ পদে অধিষ্ঠিত হন। ২০০৬ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে তাঁরা কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আছেন।

বেলা তিনটায় কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সম্মেলন শুরু হয়। ভার্চ্যুয়ালি সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডিসেম্বর মাস বিজয়ের মাস। খেলা হবে। হবে খেলা। কুমিল্লা খেলবে। সামনে বিশ্বকাপ ফুটবলের কোয়াটার ফাইনাল। আর্জেন্টিনা খেলবে। ব্রাজিল খেলবে। সবাই প্রস্তুত থাকেন। রাজনীতির মাঠেও খেলা হবে। খেলা হবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে, নাশকতার বিরুদ্ধে, লুটপাটের বিরুদ্ধে, ভোট ডাকাতির বিরুদ্ধে, ভুয়া ভোটারের বিরুদ্ধে, সাম্প্রদায়িকতা ও অগণতান্ত্রিক শক্তির বিরুদ্ধে। কুমিল্লাবাসী আপনারা তৈরি থাকেন।’

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম। বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপি কোনো রাজনৈতিক দল না। বিএনপি জঙ্গি, সন্ত্রাসী, স্বাধীনতাবিরোধী ও খুনিদের দল। এদের কাছে গণতন্ত্র শোভা পায় না। তাই আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আওয়ামী লীগ স্বাধীনতার পক্ষের সরকার।

পল্টনে পুলিশ ও বিএনপির সংঘর্ষের প্রসঙ্গ তুলে ধরে ফজলুল করিম সেলিম বলেন, ওরা (বিএনপি) গতকাল নয়াপল্টনে পার্টি অফিসে বোমা নিয়ে রিহার্সেল করতে গিয়েছিল ১০ ডিসেম্বরের জন্য। পুলিশ গিয়ে বোমা উদ্ধার করেছে। এরপর পুলিশ যা করার করেছে। বিদেশি কূটনীতিকদের কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আপনাদের দেশে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়। এ নিয়ে আমরা তো কোনো কথা বলি না। আপনারা কিছু হলেই বিবৃতি দেন। এটা আপনাদের কাজ না।’

পরে শেখ ফজুলল করিম সেলিম সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন। অন্যান্য পদ দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক মিলে পরে বসে ঠিক করবেন বলে জানান তিনি। নেতা–কর্মীদের উদ্দেশে আবারও সভাপতি হওয়া আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আধুনিক রাষ্ট্র করেছেন। আপনারা প্রধানমন্ত্রীকে সহযোগিতা করেন। ২০৪১ সালে আমাদের স্বপ্ন পূরণ হবে। বাংলাদেশ উন্নত বাংলাদেশ হবে।’

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম। প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। বিশেষ বক্তা ছিলেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আবদুস সবুর, কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসনের সংসদ সদস্য নাছিমুল আলম চৌধুরী ও কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসেম খান। উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা। সাংগঠনিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক। শোক প্রস্তাব পাঠ করেন দলের দপ্তর সম্পাদক রূপম মজুমদার।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!