ভারতীয় বিএসএফের হাতে বাংলাদেশী গরু চোরাকারবারী আটক

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি।।

১৪৫

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ার সীমন্ত অতিক্রম করে অবৈধপথে ভারত থেকে গরু আনতে গিয়ে আলামিন হোসেন (২৮) নামে এক বাংলাদেশী গরু চোরাকারবারীকে আটক করেছে ভারতীয় সীমান্তরোক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রচারিত সংবাদের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। এর আগে গত শুক্রবার (১২ নভেম্বর) ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে বাংলাদেশি যুবক গ্রেপ্তার শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এদিকে আটকের পর ওই চোরাকারবারীকে আইনি প্রক্রিয়ায় ভারতীয় পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

ভারতীয় গণমাধ্য সূত্রে জানা গেছে, ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের রাজগঞ্জের গিরানগছ বিওপি এলাকা থেকে এক বাংলাদেশি যুবককে আটক করে ভারতীয় সীমান্তরক্ষি বাহিনী (বিএসএফ)। পরে তাকে রাজগঞ্জ থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে যুবকের নাম আলামিন হোসেন (২৮) জানা যায়। তার বাড়ি বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া থানা এলাকায়। একই সাথে শুক্রবার আটক ওই যুবককে জলপাইগুড়ি আদালতে পাঠানো হয়। এর আগে ওই যুবক সীমান্ত সংলগ্ন খুদিভিটা এলাকায় ঘোরাঘুরি করছিলেন। সীমান্তে পাহারারত বিএসএফ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারে ওই যুবকের বাড়ি বাংলাদেশে। ওই যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় বিএসএফ। ভারতে আটককৃত যুবক বাংলাদেশ থেকে গরু-মহিষ নিতে সীমান্তের সাহু নদী দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে।

সূত্র জানিয়েছ, তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়নের উত্তর সীমান্তে করতোয়া নদী ও দেবনগড় ইউনিয়নের উত্তর সীমান্তের সাহু নদী দিয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে চোরাকারবারীরা ভারতে প্রবেশ করে।

খবর পাওয়ার পর সরেজমিনে দিনভরে ওইসব সীমান্তের বিভিন্ন এলাকা দিনভর ঘুরে ভারতে আটক ব্যক্তির সঠিক নাম ঠিকানা জানা যায় নি। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চোরাকারবারী জানিয়েছেন, ভজনপুরের ভুতিপুকুর এলাকার চোরাকারবারী রব্বানীর নেতৃত্বে ওই ব্যক্তি ভারতে প্রবেশ করে।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সায়েম মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন খবর আমাদের কাছে আসেনি। বিষয়টি আমরা দেখছি।

আহসানুজ্জামান সোহেল/অননিউজ24।।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!