হিলিতে হঠাৎ করেই পেট্রোল পাম্পে মিলছেনা তেল বিপাকে যানবাহন মালিকরা

হিলি প্রতিনিধি।।

১৫০

দিনাজপুরের সীমান্তবর্তী এলাকা হিলিতে হঠাৎ করেই পেট্রোল পাম্পে মিলছেনা চাহীদা মাফিক পেট্রোল তেল।এতে করে বিপাকে পড়েছেন মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহন মালিকরা। একে তেলের দাম বাড়ানোর কৌশল হিসেবে মনে করছেন ভোক্তারা তবে ডিপোতে চাহীদা মোতাবেক তেল না পাওয়ায় আমরা সরবরাহ করতে পারছিনা দাবী পাম্প কতৃপক্ষের।

পাম্পে পেট্রোল নিতে আসা মোটরসাইকেল চালক রকিবুল হাসান বলেন, আমি পাম্পে মোটরসাইকেল এর জন্য পেট্রোল নিতে আসলাম টাংকি ফুল করবো বলে। কিন্তু পাম্প থেকে দিছে মাত্র ৩লিটার তেল।এতে করে তো আমাদের বিপাকের মধ্যে পড়তে হচ্ছে। তারা বলছে তাদের নাকি তেলের সংকট যার কারনে কম দিচ্ছে। কিন্তু আমাদের তো মনে তাদের পর্যাপ্ত তেল রয়েছে তারা তেলের মজুদ করে দাম বাড়ানোর জন্য এই কৌশল করছে।

তেল নিতে আসা মোটরসাইকেল চালক পাপ্পু মিয়া বলেন,আমরা সাধারনত এই পাম্প থেকে তেল নিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে থাকি। কিন্তু গতকয়েকদিন থেকেই এখানে তেলের সমস্যা। আমরা সময়মতো তেল পাচ্ছিনা কখনো দিচ্ছে আবার কখনো তেল দিচ্ছেনা যার কারনে অনেক সময়ে ঘুরে যেতে হয়। আবার কখনো দিলেও চাহীদামত তেল দিচ্ছেনা লাগবে ৫লিটার তারা দিচ্ছে ২লিটার। যখন তেলের দরকার তখন তেল পাওয়া যাচ্ছেনা এতে করে আমাদের তো গাড়ি চালানো সমস্যা দেখা দিয়েছে।

একটি স্কুলের মাইক্রোবাস চালক ইয়াসিন হোসেন বলেন, আমরা প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে শিক্ষার্থীদের মাইক্রোবাসে করে নিয়ে স্কুলে নিয়ে আসি আবার ক্লাস শেষে তাদের বাড়িতে পৌছি দেয়। কিন্তু গতকয়েকদিন ধরে আমাদের মাইক্রোবাসের তেলের সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। পাম্পে চাহীদামতো আমরা তেল পাচ্ছিনা এতে করে গাড়ি চালাতে সমস্যা হচ্ছে আমরা চাই যাতে নিরবিচ্ছিন্ন তেল পায় সেই ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানাচ্ছি আমরা।

তেল নিতে আসা মোটরসাইকেল চালক সবুজ হোসেন বলেন, আমরা এখানে তেল নিতে আসছি কিন্তু পাম্পে আমরা ঠিকমতো তেল পাচ্ছিনা। তেল না পাওয়ার কারনে আমাদের খুব ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে। তেলের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সরকারের পদক্ষেপ গ্রহনের দাবী জানাচ্ছি আমরা।

মেসার্স হিলি ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার গোলাম রাব্বানি বলেন, এই উপজেলায় একটি মাত্র পেট্রোল পাম্প যা দিয়ে স্থানীয় যানবাহনের তেলের চাহীদা মেটানো হয়। তবে আমাদের পাম্পে যে তেলের চাহীদা আমরা সেই চাহীদা মোতাবেক ডিপো থেকে তেল পাচ্ছিনা।

বিশেষ করে পেট্রোল তেলের যে চাহীদা সেটি আমরা পাচ্ছিনা।মাসে আমাদের চাহীদা ২১হাজার লিটার সেখানে আমরা এখন পাচ্ছি সাড়ে ১০হাজার লিটার বাকী সাড়ে ১০হাজার লিটার আমাদের ঘাটতি। এই তেলের ঘাটতির কারনে আমরা পাম্পে ঠিকমতো গ্রাহকদের তেল দিতে পারছিনা।

যার কারনে তাদের সাথে আমাদের বাকবিতন্ডা হচ্ছে।তবে অকটেন ও ডিজেল তেলের চাহীদা যে চাহীদা সে মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছে সেটির সমস্যা হয়নি এখনো। এদিকে তেল না পাওয়ার কোন কারন আমরা খুজে বের করতে পারছিনা। ডিপোতে বললেও তারা কোন সদুত্তর দিতে পারছেনা। তারাও বলছে তাদের নাকি তেল কম আসছে যার কারনে কম ডেলিভারী দিচ্ছি।

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!