হিলিতে ৩ দিনের ব্যবধানে পেয়াজের দাম কমলো কেজিতে ৪টাকা

হিলি প্রতিনিধি।।

চাহীদার তুলনায় বন্দর দিয়ে পেয়াজের আমদানি কিছুটা বাড়ায় ও আমদানিকৃত পেয়াজের মান কিছুটা খারাপ হওয়ার কারনে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে পেয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। তিন দিনের ব্যবধানে পাইকাড়িতে পেয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ৪টাকা করে।

তিনদিন পুর্বে বন্দরে প্রতি কেজি পেয়াজ ৩১ থেকে ৩২টাকা দরে বিক্রি হলেও বর্তমানে তা কমে ২৭থেকে ২৮টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে দাম কমায় কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে জানিয়ে দাম আরো কমার দাবী বন্দরে পেয়াজ কিনতে আসা পাইকারসহ নিন্ম আয়ের মানুষজন।

হিলি স্থলবন্দরে পেয়াজ কিনতে আসা আইয়ুব হোসেন বলেন, গতএকসপ্তাহ ধরে পেয়াজের বাজার হঠাৎ করে বেড়ে দাম বাড়তির দিকে ছিলো এতে করে পড়তা না থাকায় আমরা বাড়তি দামে পেয়াজ না কিনে বাজার পর্যবেক্ষন করছিলাম। এখন বন্দর দিয়ে পেয়াজের আমদানি যেমন কিছুটা বেড়েছে তেমনি দাম কিছুটা করে কমেছে এতে করে সুবিধা হওয়ায় পেয়াজ কিনতে শুরু করেছি। দাম যদি আরো কমে তাহলে আমাদের কিনতে যেমন সুবিধা তেমনি মোকামে সাধারন মানুষ কম দামে পেয়াজ খেতে পারবে।

হিলি স্থলবন্দরের পেয়াজ ব্যবসায়ী সিদ্দিক হোসেন বলেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দেশীয় নতুন পাতা পেয়াজ মুড়িকাটা পেয়াজ উঠেছে যার কারনে বাজারগুলোতে সেইসব পেয়াজের সরবরাহ যেমন বেড়েছে তেমনি দাম কম থাকায় মানুষ এখন দেশীয় পেয়াজ খাচ্ছে যার কারনে আমদানিকৃত পেয়াজের চাহীদা কমার কারনেই দাম কমছে। এছাড়া ভারত থেকে বর্তমানে ইন্দোর জাতের পেয়াজ আসছে তার মৌসুম শেষ হওয়ায় পুরানো এসব পেয়াজের ছাল উঠানো আবার অনেক পেয়াজের গাছ বের হচ্ছে যার কারনে এসব পেয়াজের চাহীদা কিছুটা কম রয়েছে।

এছাড়া ভারতের বিভিন্ন মোকামে যে নতুন পেয়াজ উঠছে সেসব পেয়াজের স্থানীয় বাজারেই চাহীদা বেশী থাকায় দাম বেশী যার কারনে বন্দর দিয়ে নতুন পেয়াজ আসছেনা। তবে আগামী কিছুদিনের মধ্যে নতুন পেয়াজের সররবাহ বাড়লে দাম যেমন কমে আসবে তেমনি বন্দর দিয়ে ডিসেম্বরের শেষ দিকে বা জানুয়ারী থেকে নতুন পেয়াজ আমদানি শুরু হবে। অপরদিকে বার্মা থেকে যে পেয়াজ আসছে সেই পেয়াজের মান ভারতীয় পেয়াজের চেয়ে তুলনামুলক ভালো হওয়ায় ও দাম কম হওয়ার কারনে ক্রেতারা ভারতীয় পেয়াজ না কিনে বার্মার পেয়াজ কিনছেন।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, বন্দর দিয়ে পেয়াজের আমদানি অব্যাহত রয়েছে। তবে আমদানির পরিমান একটু বেড়েছে আগে যেখানে ১০ থেকে ১৫ট্রাক পেয়াজ আমদানি হতো এখন তা বেড়ে ১৫ থেকে ২০ট্রাক করে পেয়াজ আমদানি হচ্ছে। চলতি সপ্তাহের প্রথম দিনে ১৭টি ট্রাকে ৪৮৬টন পেয়াজ আমদানি হয়েছে। যা আমদানিকারক বন্দর থেকে খালাস করে নিয়েছেন।

আয়েশা আক্তার/অননিউজ24

আরো দেখুনঃ
error: Content is protected !!